দিন এখন আধুনিকতার। আর এই আধুনিকতার সাথে তাল মিলিয়ে দিন দিন প্রসার বাড়ছে অনলাইন ব্যবসার। আর অনলাইনে ব্যবসাকে প্রতিষ্ঠিত করতে যে বিষয়টি সবার আগে আসে সেটি হচ্ছে ওয়েবসাইট। আর আমাদের আজকের আর্টিকেলে একটি ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে কি কি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত, তা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। তাহলে চলুন শুরু করা যাক ।

দিন এখন আধুনিকতার। আর এই আধুনিকতার সাথে তাল মিলিয়ে দিন দিন প্রসার বাড়ছে অনলাইন ব্যবসার। আর অনলাইনে ব্যবসাকে প্রতিষ্ঠিত করতে যে বিষয়টি সবার আগে আসে সেটি হচ্ছে ওয়েবসাইট। আর আমাদের আজকের আর্টিকেলে একটি ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে কি কি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত, তা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। তাহলে চলুন শুরু করা যাক?

১. ওয়েবসাইট তৈরির উদ্দেশ্যঃ

আপনার ব্যবসার জন্য ওয়েবসাইট তৈরির সময় প্রথমে আপনাকে আপনার ওয়েবসাইট তৈরির উদ্দেশ্যে নির্বাচন করতে হবে। আপনি কি কারণে আপনি ওয়েবসাইটি তৈরি করছেন এবং আপনার কাস্টমাররা ওয়েবসাইট থেকে কি কি পরিসেবা পাবে সেটা নির্ণয় করতে হবে। উদাহরণসরূপ, আপনি ওয়েবসাইটের মধ্যমে পন্য বিক্র‍য় করতে পারেন, আপনি সার্ভিস প্রদানের জন্য তৈরি করতে পারেন অথবা আপনার ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ করতে পারেন ইত্যাদি।

২. রিসার্চঃ

আপনার ওয়েবসাইটিতে কি ধরনের কন্টেন্ট রাখবেন, কোন কোন কিওয়ার্ডকে প্রাধান্য দিতে হবে, আপনার কম্পিটিটররা কোন বিষয়গুলোকে প্রাধন্য দিচ্ছে, এই বিষয়গুলোকে সম্পর্কে রিসার্চ করা উচিত।

৩. সঠিক মার্কেট নির্ধারণঃ

আপনার ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে আপনাকে আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক মার্কেট নির্বাচন করা জরুরী। আপনার মার্কেট, অডিয়েন্স ও অডিয়েন্সের পচ্ছন্দের উপর ভিত্তি করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করলে আপনি সহজেই আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনার ব্যবসাকে লাভজনক করে তুলতে পারবেন।

৪. সঠিক ডোমেইন নাম নির্বাচনঃ

সঠিক ডোমেইন নির্বাচন একটি ওয়েবসাইটের জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। একটি সঠিক নাম নির্বাচন করার সময় অবশ্যই একটি ছোট নাম নির্বাচন করার চেষ্টা করবেন, যেন আপনার কাস্টমাররা আপনার ওয়েবসাইটের নামটি সহজেই মনে রাখতে পারে। পাশিপাশি খেয়াল রাখবেন আপনার নির্বাচিত নামটি যেন আপনার ব্যাবসাকে নির্দেশ করে।

৫. ওয়েবসাইট ডিজাইন ও লে-আউট নির্বাচনঃ

সঠিক নেম নির্বাচনের পরবর্তী ধাপ হচ্ছে ওয়েবসাইটের জন্য ডিজাইন ও লে-আউটগুলো নির্বাচন করা। পাশাপাশি আপনি চাইলে ডিজাইনটি খাতায় স্কেচিং করতে পারেন বা কোন প্রোফেশনাল UI/UX ডিজাইনারকে হায়ার করে আপনার ওয়েবসাইটের ডিজাইন করিয়ে নিতে পারেন।

৬. প্লান ও পেজ সিলেকশনঃ

আপনার ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বে সঠিক প্লান করে নেওয়া উচিত যে আপনার কাস্টমাররা ওয়েবসাইট ভিজিটের পর আপনি তাদেরকে আপনার ওয়েবসাইটের কোন কোন বিষয়ে আকর্ষনীয় করে তুলবেন। এছাড়া আপনার ওয়েবসাইটে কতগুলো পেইজ রাখেবেন সেটাও নির্বাচন করে নেওয়া উচিত।

৭. ওয়েবসাইট এসইও সম্পর্কে ধারনাঃ

এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন হচ্ছে বর্তমান সময়ের অনলাইন মার্কেটিং এর সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ। তাই ওয়েব সাইট তৈরির পূর্বে আপনার ওয়েবসাইট এসইও এর উপর ধারনা রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে আপনার ওয়েবসাইটি যেন এসইও সংশ্লিষ্ট সকল নিয়ম মেনে তৈরি করা হয়। উদাহরণসরূপ, ওয়েব সাইট স্পিড, মোবাইল ফ্রেন্ডলি, কি-ওয়ার্ডের সঠিক প্রয়োগ, মেটা এর সঠিক ব্যবহার ইত্যাদি।

৮. লোগো তৈরি করে রাখাঃ

প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটে ব্যবসার লোগো ব্যবহার করতে হয়। তাই ওয়েবসাইট তৈরির পূর্বেই লোগো তৈরি করে নেওয়া উচিত। উল্লেখ্য লোগোতে ব্যবহৃত কালারের উপর ভিত্তি করে ওয়েবসাইটের কালার নির্বাচন করা হয়।

৯. ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহৃত ইমেজ ও ভিডিও রেডি করে রাখাঃ

ওয়েবসাইটে নিজের ব্যবসাকে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলতে ইমেজ ও ভিডিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অনেক সময় লক্ষ্য করা যায় ওয়েবসাইট ডিজাইন শুরু করার সময় প্রয়োজনীয় ইমেজ ও ভিডিও রেডি থাকে না। যা ডিজাইন কার্যক্রমকে কিছুটা ব্যহত করে। তাই আগে থেকে ইমেজ ও ভিডিও রেডি রাখা উত্তম।

১০. ওয়েবসাইটের তৈরির জন্য সঠিক বাজেট ও ডেডলাইন নির্বাচন করে রাখাঃ

সর্বশেষ যে বিষয়টি ভেবে রাখা উচিত, তা হচ্ছে সঠিক বাজেট ও ডেডলাইন নির্ধারন করে রাখা। বাজেট সম্পূর্নরুপে আপনার ওয়েবসাইটের ডিজাইন ও ধরনের উপর। সঠিক বাজেট ও ডেডলাইন ঠিক না করে রাখার কারণে অনেক সময় ওয়েবসাইট সম্পূর্ন করতে সময় ব্যহত হয়। তাই অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট তৈরি শুরু করার পূর্বে এই বিষয়টা ভেবে রাখবেন।

আশা রাখছি উপরোক্ত ১০টি বিষয় সম্পর্কে সাম্যক ধারণা রেখে আপনি আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করা শুরু করলে অবশ্যই আপনার ব্যবসার জন্য একটু সুন্দর ব্যবসা সফল ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করে আপনার বন্ধুদের জানার সুযোগ করে দিন।
ধন্যবাদ