বর্তমানে অনলাইনে পন্য এর বিক্রয় বাড়ানোর একমাত্র পন্থা হয়ে গিয়েছে ফেইসবুক। আর ফেইসবুক বলতে মূলত ফেইসবুক এ বিজ্ঞাপন দেয়ার মাধ্যমে বিক্রয় বৃদ্ধি করার বিষয়টাকে মূল হিসেবে গ্রহণ করা হয়। কিন্তু ফেইসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে কিছু প্রয়োজনীয় বিষয়ের উপর গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে প্রায়শই আমরা ফেইসবুকে ব্যবসার বিজ্ঞাপন দেওয়ার পরও আশানুরূপ ফলাফল পাইনা। আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের নিকট ফেইসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া উচিত, সেই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবো।

তাহলে শুরু করা যাক—-

মার্কেটিং অবজেক্ট

মার্কেটিং অবজেক্ট হচ্ছে আপনার বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য। আপনি কি উদ্দেশ্য আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন ফেইসবুকে প্রচার করবেন সেটা নিশ্চিত হওয়া দরকার। ফেইসবুকে সাধারনত তিনটি ক্যাটেগরিতে বিজ্ঞাপন দেওয়া যায়। এগুলো হলো—-

  • অ্যাওয়ারনেস
  • কন্সিডারেশন
  • কনভারসন

চলুন তাহলে উপরোক্ত ক্যাটেগরিগুলো সম্পর্কে বিষদভাবে জেনে নেওয়া যাক,

আপনি যদি আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানানোর জন্য যদি ফেইসবুকে আপনার বিজ্ঞাপন দিতে চান তাহলে আপনার উদ্দেশ্য হচ্ছে অ্যাওয়ারনেস বৃদ্ধি করা।

আপনি যদি আপনার ব্যবসায়িক গুরুত্বপূর্ন কোন তথ্য আপনার কাস্টমারদের নিকট উপস্থাপন করতে যান অথবা কোন ইভেন্ট বা অফার সম্পর্কে অবগত করতে চান এবং তাদের নিকট হতে আশানুরূপ মতামতের জন্য বিজ্ঞাপন দিতে চান, তাহলে আপনার উদ্দেশ্য হচ্ছে কনসিডারেশন বৃদ্ধি করা।

এবং আপনি যদি আপনার পন্যের বিক্রয় বৃদ্ধির জন্য, অথবা আপনার ওয়েবসাইটে কাস্টমারের প্রবেশের জন্য অথবা আপনার কাস্টমারের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করতে চান, তাহলে আপনার উদ্দেশ্য হচ্ছে কনভারসন বৃদ্ধি করা।

আশা রাখছি এখন থেকে আপনি প্রত্যকটি ফেইসবুক বিজ্ঞাপনের পূর্বে অবশ্যই আপনার বিজ্ঞাপন উদ্দেশ্য সম্পর্কে অবগত হয়ে ফেইসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে আপনার ব্যবসার প্রসার ঘটাবেন।

বিজ্ঞাপনের জন্য সঠিক অডিয়েন্স সিলেকশন।

অডিয়েন্স বলেতে এখানে আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপণের জন্য টার্গেটেড কাস্টমারদের কথা বোঝানো হয়েছে। যা আপনার ফেইসবুক বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে জেনে রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনি যদি সঠিক অডিয়েন্সের নিকট আপনার বিজ্ঞাপন পৌছে দিতে পারেন তাহলে আপনি অল্প খরচে আপনার বিজ্ঞাপনে প্রচুর সারা পাবেন। অন্যথায় আপনার বিজ্ঞাপন থেকে আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যাবে না।

এজন্য আপনাকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে কাস্টমারের লোকেশন, বয়স ও তার পচ্ছন্দ সম্পর্কে অবগত হওয়া জরুরী। আপনি ফেইসবুক অডিয়েন্স ইনসাইট টুলস ব্যবহার করে আপনার অডিযেন্স সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন। সঠিক অডিয়েন্স নির্বাচনের পর আপনার বিজ্ঞাপন প্রচার করলে আপনি আপনার ব্যবসার দ্রুত সাফল্য নিয়ে আসতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ প্রত্যেক বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্যের কথা মাথায় রেখে অডিয়েন্স পরিরর্তনযোগ্য।

সঠিক অ্যাড প্লেসমেন্ট নির্বাচন।

অ্যাড প্লেসমেন্ট বলতে আপনার বিজ্ঞাপন ফেইসবুকের কোন কোন নেটওয়ার্কে ও কোন কোন ডিভাইসে প্রচার করবেন সেটা বোঝায়।

ফেইসবুকের নেটওয়ার্ক সমূহঃ
১. ফেইসবুক নিউজ ফিড
২. ফেইসবুক ভিডিও
৩. ফেইসবুক স্টোরি
৪. ফেইসবুক রাইট কলাম (ডেক্সটপ ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য প্রযোজ্য
৫. ফেইসবুক মেসেঞ্জার
৬. ইন্সটাগ্রাম নিউস ফিড
৭. ইন্সটাগ্রাম স্টোরি
৫. অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক
৬. হয়াটস অ্যাপ বিজনেস।

ডিভাইস
১. ডেক্সটপে ফেইসবুক নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারী।
২. মোবাইলে ফেইসবুক নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারী।

আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্স কোন কোন নেটওয়ার্ক ও ডিভাইস ব্যবহার করে তার উপর ভিত্তি করে অ্যাড প্লেসমেন্ট নির্ণয় করতে হবে। তাই অ্যাড দেওয়ার পূর্বে এই সম্পর্কে ধারণা রাখা উচিত।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ সারা বিশ্বে প্রতিনিয়ত মোবাইল ডিভাইস ব্যবহারের প্রচলন বৃদ্ধি পাওয়ার জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময় ডেস্কটপ ব্যবহারকারী অপেক্ষা মোবাইল ব্যবহারকারীর জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া লাভজনক।

বিজ্ঞাপনের সঠিক বাজেট ও সঠিক সময়।

বিজ্ঞাপনের বাজেট ও সময় বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনার বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে আপনি কত দিন ও কোন কোন সময়ে বিজ্ঞাপন দেখাবেন এবং প্রত্যকদিন কতটাকা বাজেট রাখবেন সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ আপনি চাইলে আপনার নির্ধারিত দিনের পুরো সময় অথবা আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্সের প্রত্যহ ফেইসবুক ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে দিনের বিভিন্ন সময়ের জন্য আপনার বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।

বিজ্ঞাপনের সঠিক ছবি ও ভিডিও

ফেইসবুকে বিজ্ঞাপনে ভালো ফলাফল লাভের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময় সঠিক ছবি বা ভিডিও নির্ণয় করা উচিত। ফেইসবুকে ছবি ও ভিডিওর জন্য কিছু গাইডলাইন আছে সেগুলো মেনে চললে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

ছবির ক্ষেত্রে যেসব নিয়ম মেনে চলা উচিত
১. ছবি আকর্ষনীয় করতে হবে।
২. ছবিতে খুব বেশি লেখা ব্যবহার করা যাবে না। মোট ছবির ২০% জায়গার মধ্যে লেখা রাখলে এটা ভালো ফলাফল এনে দেয়। আপনি সর্বোচ্চ ৪০% এলাকা জুড়ে আপনার লেখা ব্যবহার করতে পারেন। এরবেশি এলাকা জুড়ে লেখা লিখলে আপনার অ্যাডটি রিযেক্ট করা হবে। ফেইসবুক টেক্সট ওভার লে টুলস ব্যবহার করে আপনি আপনার ছবিতে টেক্সটের পরিমাণ যাচাই করতে পারেন।
৩. ফেইসবুক বিজ্ঞাপনের জন্য ছবিতে ব্যবসার লোগো ব্যবহার না করার জন্য ফেইসবুক সাজেশন দিয়ে থাকে। তাই ছবিতে লোগো ব্যবহার না করাই ভালো।
৪. ছবিতে প্রতরণা মূলক কোন তথ্য দেওয়া যাবে না।

ভিডিও এর ক্ষেত্রে কি কি বিষয় খেয়াল রাখা উচিত।
১. ভিডিও থামনেলে ৪০% নিচে টেক্সট ব্যবহার করতে হবে। ২০% নিচে রাখলে ভালো।
২. ভিডিও কোয়ালিটি ভালো রাখা উচিত।
৩. ভিডিও এর ভয়েসের দিকে মনোযোগ দিতে হবে, যেন আপনার অডিয়েন্স বিরক্তভাব প্রকাশ না করে।
৪. ব্যবসার লোগো ব্যবহার না করাই ভালো।
৫. প্রতারণা মূলক ভিডিও করা যাবে না।

উপরোক্ত সকল বিষয় একটি বিজ্ঞাপনকে সফল করতে সাহায্য করবে। তাই প্রত্যেক ব্যবসায়ীর উচিত ফেইসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার পূর্বে এইবিষয় গুলো সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখা।